Homeদেশকরোনায় মৃতদের দেহ মাটিচাপা দেওয়া হয়েছে গঙ্গার তীরে বিপাকে যোগী সরকার

করোনায় মৃতদের দেহ মাটিচাপা দেওয়া হয়েছে গঙ্গার তীরে বিপাকে যোগী সরকার

গত সোমবার বিহারের বক্সার এলাকায় গঙ্গায় ভাসতে দেখা যায় প্রায় ৫০টি মৃতদেহ। এরপরই মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশের গাজিপুরেও গঙ্গায় ভেসে ওঠে একাধিক দেহ। এরপরই নদীতে দেহ ভেসে যাওয়ার পাশাপাশি উঠে আসে নদী তীরে কয়েকশো কবরের খবর। বিভিন্ন জায়গায় মাটিচাপা মৃতদেহর খোঁজ মিলতে শুরু করল একের পর এক। এই আবহে আশঙ্কা দেখা দেয় এই মৃতদেহগুলির মধ্যে করোনা আক্রান্তদের দেহ রয়েছে। এবার সেই আশঙ্কা সত্যি করল স্বয়ং উত্তরপ্রদেশ সরকারই। জানা গিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকারের লেখা একটি চিঠি হাতে পেয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স। সেই চিঠিতেই বলা হয়েছে যে মাটিচাপা দেহের মধ্যে অনেকেই করোনায় মারা গিয়ে থাকতে পারেন। জানা গিয়েছে দারিদ্রের জেরেই এই প্রচলন শুরু হয়েছে। তবে এর থেকে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

জানা গিয়েছে, শ্মশানে যত শবদেহ নিয়ে আসা হয়, তার মধ্যে অধিকাংশ দেহ পোড়ানো হয়। বাকি দেহগুলি বালিতে পুঁতে দেওয়া হয়। কাঠের ঘাটতি থাকার কারণে দেহগুলি এভাবে চরে পুঁতে দেওয়া হচ্ছে। এতে দুর্গন্ধ বেরোচ্ছে। গঙ্গার তীরে বসবাসকারীদের স্বাস্থ্যের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। কর্তৃপক্ষ এসে দেহগুলির সত্কার করার ব্যবস্থা করলেও প্রতিদিন নতুন নতুন দেহ পোঁতা হচ্ছে মাটিতে।

জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিনে শুধুমাত্র উন্নাওতেই মিলেছে ৮০০টি কবর। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয়েছে, উত্তরপ্রদেশের যে ২৭ জেলা দিয়ে গঙ্গা বয়ে গিয়েছে, সেখানে নদীর তীরে করোনা আক্রান্তদের দেহ কবর দেওয়া হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত প্রায় ২০০০ কবর মিলেছে। উত্তরপ্রদেশে উন্নাও ছাড়া বিজনৌর, মেরঠ, মুজফ্ফরনগর, বুলন্দশহর, হাপুর, আলিগড়, বদায়ুঁ, শাহজাহানপুর, কনৌজ, কানপুর, রায়বরেলী, ফতেপুর, প্রয়াগরাজ, প্রতাপগর, মির্জাপুর, বারাণসী, গাজিপুর, বালিয়াতে এই হৃদয়বিদারক চিত্র দেখা গিয়েছে। এরমধ্যে সবথেকে বেশি সংখ্যক কবর মিলেছে উন্নাও, কানপুর, কনৌজ, গাজিপুর এবং বালিয়ায়।

ট্রেন্ডিং নিউজ