Homeপ্রথম পাতাকেন বিজেপি ছেড়ে আবারও তৃনমূলে ফিরছেন মুকুল রায়?

কেন বিজেপি ছেড়ে আবারও তৃনমূলে ফিরছেন মুকুল রায়?

ঘরের ছেলে অবশেষে ঘরে ফিরছে! ইতিমধ্যে সল্টলেকের বাড়ি থেকে তৃণমূল ভবনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন মুকুল রায়। অন্যদিকে মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়ও কালীঘাট থেকে তৃণমূল ভবনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। পাশাপাশি তৃণমূল ভবনে থাকছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। সেখানেই তৃনমূলের পতাকা নিজের হাতে তুলে নেবেন মুকুল রায়, এমনটাই সূত্র মারফত খবর মিলেছে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৩ নভেম্বর তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-তে যোগ দিয়েছিলেন মুকুল রায়। ঠিক সাড়ে তিন বছরের মাথায় ফের পুরনো ঘরেই ফিরছেন মুকুল। রাজনৈতিক মহলের একাংশ জানাচ্ছে, ২০১৯-এ বিজেপি-কে সাফল্য এনে দেওয়ার পর ২০২১-এর আগে তাঁর গুরুত্ব আরও বাড়বে বলেই আশা করছিল মুকুল এবং তাঁর অনুগামীরা। কিন্তু বিধানসভার ভোট যত এগিয়েছে, ততই যেন বিজেপি-তে মুকুলের সক্রিয়তা কমতে দেখা গিয়েছে। পাশাপাশি মুকুলকে কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্রে প্রার্থী করা হলেও মুকুল বা তাঁর অনুগামীদের খুব একটা পছন্দ ছিল না। বিজেপি যেখানে রাজ্যে ২০০ আসন পেয়ে ক্ষমতা দখলের স্বপ্ন দেখছিল, সেখানে মুকুলের মতো পোড়খাওয়া নেতাকে কেন কাজে লাগানো হচ্ছে না, তা নিয়ে মুকুল শিবিরে ক্ষোভ বাড়তে থাকে। এদিকে বিজেপিতে যোগদানের পর মুকুল বিজেপি-কে রাজ্যে ক্ষমতায় আনার জন্য যতবার চেষ্টা করেছিলেন, ঠিক ততবারই দলের অন্দরের রাজনীতিই তাঁকে দমিয়ে দিয়েছে। এমন কি মোদি, শাহের আস্থাভাজন হলেও দিল্লিতে দরবার করেও মুকুল এই সমস্যার সুরাহা করতে পারেননি বলেই তাঁর অনুগামীদের দাবি। ফলে তাঁর হতাশাও বাড়তে থাকে।এবং ভোটে প্রার্থী করে মুকুলকে কার্যত নিজের কেন্দ্রেই সীমাবদ্ধ করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

এদিকে, গত ১৪ মে করোনায় আক্রান্ত হল মুকুল ও তাঁর স্ত্রী কৃষ্ণা রায়। ভর্তি হন ইএম বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে। করোনামুক্ত হলেও আপাতত বেশ কিছু শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন তিনি। সম্প্রতি তাঁকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরেই মমতা ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দরাজ প্রশংসা করেন শুভ্রাংশু রায়। মুকুল-পুত্রের এই বক্তব্য সামনে আসতেই তাঁদের তৃণমূলে ফেরার জল্পনা দানা বাঁধে।

ট্রেন্ডিং নিউজ