২০২৬-এর বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় ভবিষ্যদ্বাণী করেন অমিত শাহ

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এককভাবে ৩৭০টিরও বেশি আসনে জয়ী হওয়া নিয়ে রীতিমতো আত্মবিশ্বাসী বিজেপি। কিন্তু, কোথা থেকে আসতে চলেছে এই বাড়তি সিট? উত্তর ভারতে দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্য কায়েম করে রাখা পদ্মশিবির কি এবার পারবে দক্ষিণ ভারতে দাঁত ফোটাতে? সিএনএন-নিউজ ১৮-এর রাইজিং ভারত সামিট ২০২৪-এ এমন প্রশ্নেরই আত্মবিশ্বাসী উত্তর দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ বললেন, “দল ৪০০ আসন পাবে, সেটা দেশের যে প্রান্ত থেকেই আসুক না কেন”।

সূত্রের খবর, বাড়তি আসনের জন্য বেশ কয়েকটি রাজ্যকে টার্গেট করেছে বিজেপি। অমিত শাহের কথায়, “বাংলা, ওড়িশা, তেলঙ্গানা এবং পঞ্জাবে আসন সংখ্যা বাড়ার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। কেরল এবং তামিলনাড়ু থেকেও আমরা ভাল আসন পেতে পারি।” এরসঙ্গে তিনি যোগ করেন, “দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলিতে বিজেপি ইতিবাচক ফল করবে।”

লোকসভা ভোটে বাংলায় বিজেপি কেমন ফল করবে? সম্প্রতি ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, বাংলায় চমকে দেওয়ার মতো ফল করবে বিজেপি। অমিত শাহের গলাতেও সেই চমেকের প্রতিধ্বনি। তিনি বলছেন, “বাংলায় বিজেপি ২৫টির বেশি আসন জিতবে।’’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে আক্রমণ শানিয়ে প্রশ্ন তোলেন, ‘‘কেন বাংলার শস্য কালোবাজারে বিক্রি হচ্ছে? কেন হর নল জল প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়নি? কেন তারা সিএএ-র বিরোধিতা করছে? একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রীর অধীনে কীভাবে সন্দেশখালির মহিলাদের উপর অত্যাচার হয়?’’

শুধু তাই নয়, ২০২৬-এর বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি বাংলায় ২৩৫ আসন পাবে বলেও ভবিষ্যদ্বাণী করেন অমিত শাহ। তাঁর কথায়, একক বৃহত্তম দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে বিজেপি। পাশাপাশি উত্তরপ্রদেশে ২০১৪ এবং ২০১৯-এর চেয়ে ভাল ফল হবে বলে আশাবাদী শাহ।

অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তেলঙ্গানা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অমিত শাহ বলছেন, ‘‘এই প্রথমবার বিজেপি দক্ষিণ ভারতে ব্যাপক সমর্থন পাচ্ছে।’’ ২০২৪-এর লোকসভা ভোটে দক্ষিণের পাঁচটি রাজ্য থেকেই বিজেপি উল্লেখযোগ্য আসন পাবে বলে মনে করেন শাহ। আর ওড়িশা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আগে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আমরা জোট করব কি না। বিজেপি যদি একা লড়ে তাহলে রাজ্যে সরকার গঠনের জন্য লড়বে।” আর বিহার? অমিত শাহের গলায় কটাক্ষের সুর, “আমরা গঙ্গার কিনারে ছিলাম। নীতীশজি আমাদের সঙ্গে যোগ দিলেন।”

মহারাষ্ট্রে এখনও আসন ভাগাভাগি চূড়ান্ত হয়নি। রাজ ঠাকরে এনডিএ-তে যোগ দিতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। তবে অমিত শাহের মতে, এসবের কোনও প্রভাব পড়বে না আগামী নির্বাচনে। তিনি বলেন, ‘আমরা ৪১টির বেশি আসনে জিতব।’’ উদ্ধব ঠাকরে এবং শরদ পওয়ারকেও খোঁচা দিয়ে বলেন, ‘‘উদ্ধব ঠাকরের ছেলের প্রতি অতিরিক্ত ভালবাসার কারণে শিবসেনা ভেঙেছে। আর মেয়ের প্রতি শরদ পওয়ারের অতিরিক্ত ভালবাসায় এনসিপি-তে ভাঙন ধরেছে। এতে বাইরের কারও হাত নেই।’’

Latest articles

Related articles